1. admin@kholanewsbd24.com : admin :
রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ০৬:৩০ অপরাহ্ন
রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ০৬:৩০ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
ঠাকুরগাঁয়ে আখ চাষে আবার আগ্রহ কৃষকরা বিরামপুরে জাতীয় বস্ত্র দিবস পালিত শাহজাদপুরে ভ্যান চালকের লাশ উদ্ধার ঠাকুরগাঁওয়ে বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ বিষয়ক আলোচনা সভা বিএমএসএফ’র জাফরকে মোবাইল ফোনে হুমকি: এ্যাবজার প্রতিবাদ কমিউনিস্ট চীন হংকংয়ের স্কুল শিশুদের মগজ ধোলাই করার জন্য প্রচারের নতুন অস্ত্র হিসাবে পাঠ্যপুস্তক ব্যবহার করছে ভোরের কাগজের দেশসেরা সাংবাদিক নোয়াখালীর সোহেল প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুল দেখিয়ে আলীকদম এবং নাইক্ষ্যংছড়ি পাহাড়ি সীমান্তে দিয়ে এসে প্রতিদিন দেশের বিভিন্ন প্রান্তে যাচ্ছে শত শত অবৈধ গরু মহিষ ইবিতে আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় হ্যান্ডবল ও ভলিবল প্রতিযোগিতা শুরু লালমনিরহাটে ইউনাইটেড গোল্ডেন সিটিজেনস ফাউন্ডেশন ক্রিকেট দলের অনুশীলন ক্যাম্পের সমাপনী অনুষ্ঠান

আজ ২৫শে নভেম্বর শিবচরে মুক্ত দিবস পালিত হয়েছে

প্রশাসন
  • সময় : শুক্রবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২২
  • ৩০ বার পঠিত

রাকিবুল হাসান(রকি),
মাদারীপুর প্রতিনিধিঃ

আজ ২৫ নভেম্বর মাদারীপুরের শিবচর উপজেলা মুক্ত দিবস। ১৯৭১ সালের এই দিনে শিবচরে সম্মুখ রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধারা পাক হানাদার বাহিনীকে পরাস্ত করেছিলেন। এ যুদ্ধে চারজন মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হন। আর ১৮ জন হানাদারসহ তাদের দোসররা নিহত হন। এ যুদ্ধে অংশ নিয়ে ফরিদপুরের ভাঙ্গা ও সদরপুর উপজেলার দুই মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারও নিহত হন।

জানা যায়, ১৯৭১ সালের মে মাসে পাক হানাদার বাহিনী স্থানীয় রাজাকারদের নিয়ে দুই দফা শিবচরের ৩০ জন নিরীহ নারী-পুরুষকে হত্যাসহ ধর্ষণ, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ করে স্থানীয় থানায় ঘাটি গাড়ে। ১৯৭১ সালের সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে মুক্তিযোদ্ধারা শিবচর বাজারে অবস্থিত হানাদার বাহিনীর ক্যাম্প গুঁড়িয়ে দেন। এরপর থেকেই হানাদার বাহিনী ও তাদের দোসররা খুন, ধর্ষণ, জ্বালাও-পোড়াও বাড়িয়ে দেন। ২৪ নভেম্বর রাত ৩টায় স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধারাসহ ভাঙ্গা ও সদরপুর থানার মুক্তিযোদ্ধারা হানাদার বাহিনী ও রাজাকারদের আশ্রয়স্থল শিবচর থানা মুক্ত অপারেশন শুরু করেন। প্রায় ১৭৫ জন মুক্তিযোদ্ধা হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে সম্মুখযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েন। প্রায় ১৬ ঘণ্টার যুদ্ধে ২৫ নভেম্বর সন্ধ্যা ৬টায় হানাদার বাহিনী আত্মসমর্পণ করে।

শিবচর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার শাজাহান চৌধুরী জানান, এ যুদ্ধে শিবচরের আ. ছালাম, ভাঙ্গার কমান্ডার মোশাররফ হোসেন ,সদরপুরের কমান্ডার দেলোয়ার হোসেন ও সহযোগী ১১ বছর বয়সের শিশু ইস্কান্দারসহ চারজন মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হন। যুদ্ধে ১৮ জন পাক হানাদার ও রাজাকার নিহত হন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ খোলা নিউজ বিডি ২৪
Themes Customize By Shakil IT Park