1. admin@kholanewsbd24.com : admin :
শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ০৫:০৮ পূর্বাহ্ন
শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ০৫:০৮ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
নানা আয়োজনে দৈনিক বাংলাদেশ কণ্ঠ’র প্রতিষ্ঠা বাষিকী পালন নাগেশ্বরীতে আলোকিত কুড়িগ্রামের মিলনমেলা-২০২২ অনুষ্ঠিত সুবর্ণ ব্লাড ফাউন্ডেশনের ৫ম বর্ষপূর্তি উৎযাপন। যমুনায় ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ, হাজারো মানুষের ঢল নোয়াখালীতে পিকাপ ভ্যানের ধাক্কায় বৃদ্ধের মৃত্যু যৌনসন্ত্রাসের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ মিছিল ইসলামী আন্দোলনের নোয়াখালীতে ১২০০পিস ইয়াবাসহ আটক-২ পদোন্নতি পেলেন সাংবাদিক পেটানো মামলার আসামি বিএমডিএ কর্মচারী রাজশাহী নগরীতে সাতটি ফ্ল্যাটের বিদ্যুৎ সংযোগ কেটে দিলেন এমপি ফারুক ঠাকুরগাঁওয়ে ভেলাজান আনছারিয়া ফাযিল ডিগ্রি মাদ্রাসার সহ– অধ্যাপককের ছাত্রী সঙ্গে কেলেঙ্কারির কারণে সাময়িক বরখাস্ত ।

সখীপুর হামিদুলের বিষমুক্ত আনারসের বাগানে বাম্পার ফলন

প্রশাসন
  • সময় : বুধবার, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৬৮ বার পঠিত

সখীপুর হামিদুলের বিষমুক্ত আনারসের বাগানে বাম্পার ফলন

রফিকুল ইসলাম
স্টাফ রিপোর্টার সখীপুর(টাঙ্গাইল):
টিলাজুড়ে শুধু আনারস গাছের সারি। প্রতিটি গাছের মাথা উঁচু করে আছে আনারস। সবুজ আর হলুদ আনারসের মিষ্টি গন্ধে মাতোয়ারা বাতাস। এখানকার বাতাসই যেন বয়ে বেড়াচ্ছে আনারস সুমিষ্ট সুভাস। এমন দৃশ্য মিলেছে টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলার কৈয়ামধু গ্রামের হামিদুলের আনারস বাগানে।

২০২০ সালে হামিদুল আত্মীয় বাড়ী বেড়াতেন যান টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলায়। যদিও আনারস চাষে রাজধানী’ নামে খ্যাত মধুপুর। সারি সারি আনারস বাগান দেখে শখ জাগে বাগান করার। বাড়িতে এসে আলোচনা করে উদ্যোগ নেন বাগান সৃজনের। মধুর থেকেই সংগ্রহ শুরু হয় আনারসের চারা। আনারস চাষের কথা শুনে পরিবার ও এলাকাবাসীর তাচ্ছিল্য ছাড়া সহযোগিতা মেলেনি। পৈত্রিক সম্পত্তি ৪ একর এবং নিকট আত্মীয় ২ একর জমি লিজ নিয়ে মোট ৬ একর জমিতে প্রথমে ঝুকিনিয়ে ৬০ হাজার আনারস লাগান।

প্রথম বছরে বাম্পার ফলন হয়েছে। সবুজ আর হলুদ আনারসের মিষ্টি গন্ধে মাতোয়ারা পুরো এলাকা। বাগানের মনোরম দৃশ্য আর সুমিষ্ট আনারসের টানে দুপুর গড়িয়ে বিকেল হলেই ঢল নামে সেলফিবাজ পর্যটকদের ভিড়। এ বছর প্রায় ৬০ হাজার আনারস বাজার মূল্যে বিক্রি করে ৯ লক্ষ টাকা আয়ের সম্ভাবনা রয়েছে ।

স্থানীয় মাসুদ রানা বলেন, উপজেলা জুড়ে হামিদুলের বিষমুক্ত আনারস বাগানের সুনামও ছড়িয়ে পড়েছে। সফলতা দেখে এখন আমি ভাবছি নিজেদের অনাবাদি টিলায় আনারসের বাগান করাবো।

আনারস চাষী হামিদুল হক জানান,এ উপজেলায় আম,পেয়ারা, মালটা ও কাচা মরিচ (দাড়িয়াপুরের কাচামরিচ) চাষের জন্য সুনাম থাকলেও আমি আশা করছি এবার বিষ মুক্ত আনারস আবাদের জন্য সুনাম ছড়াবে। ৬০ হাজার আনারস চারা লাগাতে আমার সকল খরচ বাবদ লেগেছে প্রায় ১৩ লক্ষ টাকা। প্রথমবারেই বাম্পার ফলন হয়েছে। বর্তমান বাজারে পাইকারি মূলেবিক্রি করলে আমার প্রায় ৯ লক্ষ টাকা লাভবান হবো। কৃষি অফিস সহযোগিতা করলে আগামীতে আরো জমিতে আনারস চারা করবো।

উপজেলা কৃষি অফিসার নিয়ন্তা বর্মণ বলেন, এ উপজেলার মাটি ফল চাষের জন্য ব্যাপক উপযোগী। কলা, আম, মালটা, ড্রাগন আবাদের সাথে এ উপজেলায় নতুন করে যুক্ত হচ্ছে আনারস চাষ। আমরা বিভিন্ন কৃষকদের আনাবাদি উচু জমিতে আনারস চাষে উৎসাহ দিচ্ছি। তবে আমার অনুসন্ধানে এ উপজেলায় হামিদুল প্রথম প্রায় ৬ একর জমিতে উচ্চ সফলশীল জাংয়ান্ট কিউ জাতের আনারস চাষ করেছেন। ফলন ভাল হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ খোলা নিউজ বিডি ২৪
Themes Customize By Theme Park BD