1. admin@kholanewsbd24.com : admin :
রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ০২:৪০ অপরাহ্ন
রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ০২:৪০ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
নাটোরে ছাত্র কে বিয়ে করা সেই শিক্ষিকার মৃত্যুর কারন কি ত্রিপুরা সেবা দলের পক্ষ থেকে ভারত গৌরব যাত্রা শুরু আগরওয়ালাতে ঝালকাঠিতে পুরে যাওয়া অভিযান ১০ লঞ্চ আদালতের নির্দেশে মালিককে বুঝিয়ে দিল পুলিশ মাদক ব্যাবসায়ে বাধা, যুবককে হত্যাচেষ্টা সোনারগাঁয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধার জমি দখলের অভিযোগ সপ্তাহব্যাপী জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে নিজ নির্বাচনী এলাকায় (ঝালকাঠি-১) এসেছেন সংসদ সদস্য এমপি হারুন বিরামপুরে ট্রেনের ধাক্কায় নবম শ্রেণী পড়ুয়া শিক্ষার্থীর মৃত্যু লালমনিরহাটে সাপ্তাহিক আলো মনি পত্রিকার নবম বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠিত সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন কাশিমপুরে তিন মাস পরে অপহরণকারী আল-আমীন আটক

ঠাকুরগাঁওয়ে রানীশংকৈল ভাংবাড়ি মহেশপুর গ্রামে গাড়ির শব্দ পেলেই বুক কেঁপে উঠে নারীদের ও শিশুদের

প্রশাসন
  • সময় : শনিবার, ৬ আগস্ট, ২০২২
  • ২১ বার পঠিত

মোঃ মজিবর রহমান শেখ,,
গাড়ির শব্দ পেলেই বুক কেঁপে উঠে এলাকার নারী ও শিশুদের । নারীরা ভাবে কখন ধরে নিয়ে যায় স্বামী ও ছেলে আর শিশুরা ভাবে কখন ধরে নিয়ে যায় বাবা ও ভাইকে । আতঙ্ক ও ভয়ে দিন কাটছে রাণীশংকৈল উপজেলার বাচোঁর ইউনিয়নের ভাংবাড়ি মহেশপুর গ্রামের নারী ও শিশুদের। প্রায় ৫ বছর আগে নদী ভাঙনে বাড়ি-ঘর জমি জায়গা সব বিলীন হয়ে যায় সবুরা খাতুন (৫০)। নদী ভাঙনে নিঃস্ব হয়ে বগুড়া থেকে স্বামী সন্তান নিয়ে চলে আসেন রাণীশংকৈল উপজেলার মহেশপুর গ্রামে। ৫ সদস্যদের পরিবারের একমাত্র উপার্যনক্ষম ব্যক্তি স্বামী বেল্লাল হোসেন। দিনমুজুরি করে সংসার চলে তাদের। কিন্তু গত ২৭ জুলাই ইউপি নির্বাচনী সহিংসতায় ভাংবাড়ি ভিএফ নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ভোট কেন্দ্রে পুলিশের গুলিতে সুরাইয়া আক্তার নামে ৮ মাস বয়সী শিশু নিহত হয়। এ ঘটনায় অজ্ঞতনামা ৮শ জনের নামে মামলা হওয়ায় স্বামী ও সন্তান গ্রেফতার আতঙ্ককে ঘর ছাড়া। বর্তমানে বাড়িতে পুরুষ মানুষ না থাকায় বৃদ্ধা সবুরার দিন কাটছে আতঙ্কে। সবুরা খাতুনের অভিযোগ, এখানকার ভোটার না হয়েও আমার স্বামী-সন্তান গ্রেফতারের ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে। বাড়িতে খাওয়ার মতো চাল-ডাল কিছুই নেই। অন্যদিকে, সবুরা খাতুনের মতো নদী ভাঙনে নিঃস্ব হয়ে কয়েক বছর আগে হাতিবান্ধা থেকে স্বামী-সন্তান নিয়ে মহেশপুর গ্রামে বসবাস শুরু করেন সখিনা আক্তার। ভ্যানগাড়ি চালিয়ে তার স্বামী যা আয় রোজগার করেন তা দিয়েই চলতো সংসার। সখিনা আক্তার কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন, নির্বাচনী সহিংসতায় বর্তমানে পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি গ্রেফতারের আতঙ্কে পালিয়ে থাকায় অনাহারে থাকতে হচ্ছে তাদের। মারামারি করলো ভোটে অংশ নেয়া ব্যক্তিরা আর শাস্তি ভোগ করতে হচ্ছে আমাদের মতো দিনমুজুর গরিবদের। একদিন ভ্যান না চালালে যেখানে চুলা জ্বলেনা। সেখানে স্বামী পালিয়ে বেড়াচ্ছে। তাহলে কতটা ভালো আছি বলার অপেক্ষা নেই। সখিনা আক্তারের পাশে বসে থাকা পঞ্চান্ন বছর বয়সী নারী রুবিনা বেগম অঝরে কান্না করছিলেন। স্বামী দিনমুজুর সিরাজুল ইসলাম ও ছেলেরা আজ কয়েকদিন থেকে বাড়িতে থাকতে পাচ্ছেন না। যদি পুলিশ এসে ধরে নিয়ে যায় এই ভয়ে। কান্না যেন থামছেই না রুবিনা বেগমের। তিনি জানান, বাড়ির পাশে ভোট কেন্দ্রটি আনাতেই আমাদের উপর বিপদ নেমে আসলো। আজ কয়েকদিন হলো আমার স্বামী বাড়িতে নেই। ছেলেদের কোন খোঁজ নেই। আমার বাপের জন্মেও এমন ঘটনা দেখিনি। আল্লাহর কাছে বলছি এর থেকে মৃত্যুই অনেক ভালো। আমরা নদী ভাঙালোক। অনেক কষ্ট করে সন্তানদের বড় করেছি। এখন যে এখান থেকে চলে যাবো তারও কোন ব্যবস্থা নেই। কিস্তি চালাতে পারছি না। চিকিৎসা করার মতো টাকাও নাই। খাবার টাকা নাই। বিপদের মধ্যে দিন কাটছে। কথা হয় একই এলাকার সালেহা আক্তারের সাথে। পুলিশের ভয়ে তার স্বামী পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। দুই শিশু সন্তান নিয়ে কষ্টে দিন কাটছে সালেহার। পুলিশ যদি তার স্বামীকে ধরে নিয়ে যায় এ ভয়ে কোথাও কাজ করতে পারেন না। বড় ছেলের জ্বর। টাকার অভাবে ওষুধ কিনতে পারেন না। মায়ের কাছে ২০০ টাকা নিয়ে সন্তানের ওষুধ ও বাজার করেছেন তিনি। এভাবে আর কত দিন থাকতে হবে প্রশ্ন রাখেন সালেহা। এ বিষয়ে ঠাকুরগাঁও জেলা পুলিশ সুপার জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, সহিংসতার ঘটনায় তিনটি পৃথক মামলা হয়েছে। এতে ভাংবাড়ি ভিএফ নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রের দায়িত্বরত প্রিজাইডিং কর্মকর্তা খতিবর রহমান একটি ও থানার দুই সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) বিলাশ চন্দ্র রায় ও আহাদুজ্জামান বাদী হয়ে দুটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় কারও নাম উল্লেখ নেই। তবে অজ্ঞাত আসামি ৮শ জন। এ মামলায় নির্দোষ কাউকে হয়রানি করা হবে না বলেও জানান তিনি। উল্লেখ্য, নিহত সুরাইয়া আক্তারকে নিয়ে মা মিনারা বেগম রাণীশংকৈল উপজেলার বাচোঁর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের ভাংবাড়ি ভিএফ নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে ভোটের ফলাফল দেখতে যান। সেখানে ভোটের ফলাফলকে কেন্দ্র করে পরাজিত ইউপি সদস্য সমর্থকদের সাথে আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যদের সংর্ঘষ হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ গুলি ছুড়লে গুলিবিদ্ধ হয়ে শিশু সুরাইয়া আক্তার মারা যায়।

মোঃ মজিবর রহমান শেখ
০১৭১৭৫৯০৪৪৪

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ খোলা নিউজ বিডি ২৪
Themes Customize By Theme Park BD