1. admin@kholanewsbd24.com : admin :
সন্তান নিতে দেরি হলেও যে সুফল পাওয়া যাবে - খোলা নিউজ বিডি ২৪
সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ০২:৪২ অপরাহ্ন
সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ০২:৪২ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
“Aid to Good Investigation Course” এর ১০৫তম ব্যাচের শুভ উদ্বোধন জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে পরিত্যাক্ত ৩টি ওয়ানশুটার গান উদ্ধার কোটাসহ সাত দফা দাবিতে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদ এর উদ্যোগে ২৩ ই ফেব্রুয়ারি শাহবাগে অবস্থান কর্মসূচি এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে স্বারকলিপি জমা দেওয়ার কর্মসূচি ঘোষনা গৌরীপুরে মোতালিব বিন আয়েতের স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত জয়পুরহাটে ক্ষেতলালে জমি-জমাকে কেন্দ্র করে মারামারি আহত ২ চাঁপাইনবাবগঞ্জে আপেল প্রতীক কাঁপাচ্ছে মাঠ জয় করাতে জনগণ একমত ময়মনসিংহে পুলিশের উদ্যোগে ৫ শতাধিক দুস্থ পেল কম্বল পৃথক অভিযানে নোয়াখালীতে ইয়াবা ও আগ্নেয়াস্ত্রসহ গ্রেপ্তার-৪ শ্যামপুরের কহিনুর হত্যাকারীদের শাস্তির দাবীতে সংবাদ সম্মেলন দেশের জনগন ও পুলিশ সাথে নিয়ে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয় প্রধানমন্ত্রীর

সন্তান নিতে দেরি হলেও যে সুফল পাওয়া যাবে

প্রশাসন
  • সময় : বুধবার, ২৩ জুন, ২০২১
  • ২৭৩ বার পঠিত

ডেস্ক রিপোর্ট :
গর্ভধারণে বাধা হয়ে দাঁড়ায় ডিএইচইএ নামের হরমোন। যা বয়সের সাথে কমতে থাকে। তাই পাল্লা দিয়ে কমে ডিম্বাণুর গুণমানও। ব্যাপারটা অনেকটা কোল্ড স্টোরেজে আলু রাখার মতো।

বেশি বয়েসে মা হওয়ার পরিকল্পনা থাকলে চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে ডিএইচইএ ওষুধ নিতে পারেন মেয়েরা। এই হরমোনটিই বাদবাকি ডিম্বাণুগুলোকে ভাল রাখবে। এর সে রকম পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। ত্বক তৈলাক্ত, মুখে ব্রণ বা অবাঞ্ছিত লোমের কিছু সমস্যা হতে পারে। তার বেশি নয়। আর এর গুণেই চল্লিশ পেরিয়েও এখন নিজের ডিম্বাণু দিয়েই মা হতে পারেন।

ডেনমার্কের আর্হাস বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, ৩৫-এর পর যারা মা হচ্ছেন, তারা অনেক ভালোভাবে লালন-পালন করতে পারছেন সন্তানদের।

দেরিতে প্রথমবারের মতো মা হলে কিছু জটিলতা থাকলেও দম্পত্তির এক্ষেত্রে বেশি সচেতন থাকেন। সে জন্য আগেই পরিকল্পনা করে স্বামী-স্ত্রী নির্দিষ্ট কিছু পরীক্ষা করে রাখেন। এছাড়াও ডাক্তারের সার্বক্ষণিক তত্ত্বাবধানে থাকলে কারও কোনো জটিলতা থাকলে প্রাথমিক অবস্থাতেই চিকিৎসা শুরু করে দেওয়া সম্ভব।

বেশি বয়সের মায়েরা কিশোর সন্তানদের প্রতি তুলনামূলকভাবে কম শাসন করে থাকেন। ফলে এমন মায়েদের কাছে মন খুলে খোলামেলাভাবে কথা বলতে পারে সন্তানরা। সন্তানের মানসিক বিকাশের ক্ষেত্রে সুস্থভাবে বড় হয়ে ওঠা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এছাড়াও প্রাপ্ত বয়স্ক মা-বাবার পারস্পরিক সমঝোতাপূর্ণ সম্পর্ক ও মানসিক পরিপক্কতায় সন্তানরা সুস্থ পারিবারিক পরিবেশ পায়।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা