1. admin@kholanewsbd24.com : admin :
সুনামগঞ্জের ছাতকে লিচুর বাম্পার ফলন - খোলা নিউজ বিডি ২৪
শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১২:৩০ অপরাহ্ন
শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১২:৩০ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
পলাশবাড়ীতে মাদ্রাসার অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে গভর্নিং বডির তিন সদস্যের সংবাদ সম্মেলন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার ‘গাভী’ পেয়ে খুশি নাটোরের সিংড়া উপজেলার ৩৯ টি আদিবাসী পরিবার কুড়িগ্রামে ভার্মী কম্পোষ্ট উৎপাদন নিয়ে প্রশিক্ষণ ও আলোচনা “ময়মনসিংহ পুলিশ হাসপাতালে পুলিশ সদস্যদের জন্য ডায়াগনস্টিক টেস্ট কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন” সদ্য পদন্নোতি প্রাপ্ত সিআইডি’র কর্মকর্তাদের র‍্যাংক ব্যাজ পরিধান করান সিআইডি প্রধান পটুয়াখালীতে ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে শহীদ মিনার নির্মান কাজের ভি‌ত্তিপ্রস্থর স্থাপন ধামইরহাট সীমান্ত প্রেসক্লাবের আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন ময়মনসিংহের গফরগাঁও অধিকাংশ ইটভাটায় পোড়ানো কাঠ শরীয়তপুর পৌরসভার স্টাফের ওপর হামলার অভিযোগ ২ বছর ভোগান্তীর পর সংষ্কার হচ্ছে গৌরীপুর- শ্যামগঞ্জ সড়ক

সুনামগঞ্জের ছাতকে লিচুর বাম্পার ফলন

প্রশাসন
  • সময় : শুক্রবার, ২৮ মে, ২০২১
  • ১০২ বার পঠিত

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ
সুনামগঞ্জের ছাতকে লিচুর বাম্পার ফলন হয়েছে। বাগানের গাছে গাছে ঝুলছে রসালো ফল লিচু। এ মৌসুমে এখানকার চাষীরা লিচু বিক্রি করে লক্ষ-লক্ষ টাকা আয় করেছেন। করোনার কারণে এখানের মৌসুমী ফল লিচু দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের হাটে পাঠিয়ে বিক্রি করা হয়নি। ফলে ছাতক-দোয়ারার সব হাটবাজারে এ অঞ্চলের উৎপাদিত লিচু বিক্রি হচ্ছে। এখানের উৎপাদিত লিচু দিয়ে ছাতক-দোয়ারার মানুষের চাহিদা পূরণ করতে সক্ষম হয়েছেন চাষীরা। প্রতিদিন গড়ে ছাতকবাজারসহ এখানের বাজারগুলোতে কয়েক লক্ষ টাকার স্থানীয় জাতের লিচু বিক্রি হয়। ছাতক উপজেলার নোয়ারাই ইউনিয়নের মানিকপুর, গোদাবাড়ী, চানপুর, বড়গল্লা, কচুদাইড়, রাজারগাঁও এবং দোয়ারাবাজার উপজেলা সদর ইউনিয়নের লামাসানিয়া, পরমেশ্বরীপুর, বীরসিংহপুর, সুরমা ইউনিয়নের টেংরাটিলা ও আলীপুরসহ বেশ কয়েকটি গ্রামে বাণিজ্যিকভাবে লিচু চাষ করা হয়ে থাকে। প্রতিদিন গড়ে ছাতক -দোয়ারাবাজারসহ এখানের হাটগুলোতে কয়েক লক্ষ টাকার স্থানীয় লিচু বিক্রি হয়। পুরো মৌসুমে এখানের চাষীরা কোটি টাকার লিচু বিক্রি করেন। লিচু চাষী মানিকপুর গ্রামের আরব আলী, গোদাবাড়ী গ্রামের আব্দুল কাদির, রাজারগাও গ্রামের আব্দুল মালিক, চানপুর গ্রামের আনোয়ার মিয়া ও লামাসানিয়া গ্রামের হেলাল উদ্দিন জানান, লাভজনক লিচু চাষে জড়িয়ে এখানের শতাধিক চাষী এখন স্বাবলম্বী। লিচুর ভালো বাজারমূল্য রয়েছে এখানে। চলতি মৌসুমে লিচুর ফলন আশানুরূপ হয়েছে। ছাতক শহর থেকে সুরমা নদী পাড়ি দিয়ে ৩ কিলোমিটার পথ পেরিয়ে টিলা বেষ্টিত চৌমুহনী বাজার ও লিচুর গ্রাম হিসেবে পরিচিত মানিকপুর। একটু এগুলেই দোয়ারাবাজারের লামাসানিয়া গ্রাম। এসব গ্রামের প্রতিটি বাড়িতেই রয়েছে লিচুর গাছ। বাণিজ্যিকভাবে লিচু চাষ করেছেন এলাকার শতাধিক পরিবার। বর্তমান সময়ে ছাতক-দোয়ারাবাজারের এ এলাকার লিচু বাগানের গাছে-গাছে ঝুলছে দেশীয় জাতের পাকা রসালো ফল লিচু। যা দেখলেই চোখ জুড়িয়ে যায়। এখানের লিচু বাগান দেখতে প্রায়ই দর্শনার্থীদের ভীড় জমে। ব্রিটিশ জমিদার আমল থেকেই নোয়ারাই ইউনিয়নের মানিকপুর ও আশপাশ এলাকার টিলাভূমিতে লিচু চাষ শুরু হয়। বেশ কয়েকবছর ধরে এ অঞ্চলে বাণিজ্যিকভাবে বাগান তৈরি করে লিচুর চাষ করা হচ্ছে। লিচু চাষ লাভজনক হওয়ায় দিন-দিন এর পরিধি বেড়েই চলছে। স্থানীয়রা জানান, ব্রিটিশ আমলে গৌরীপুরের জমিদার হরিপদ রায় চৌধুরী ও তার ভাই শান্তিপদ রায় চৌধুরীর কাছারিবাড়ি ছিলো মানিকপুর গ্রামে। এ কাছারি বাড়িতে জমিদারের লোকজন কয়েকটি লিচুগাছ রোপন করেছিলো। কাছারিবাড়িতে শতবর্ষী তিনটি লিচু গাছ এখনো কালের সাক্ষী হয়ে দাড়িয়ে আছে। কাছারিবাড়িতে বহু আগে গ্রামবাসী জামে মসজিদ নির্মাণ করেছেন। মূলত ওই কাছারিবাড়ি থেকেই গ্রামজুড়ে লিচু চাষ ছড়িয়ে পড়ে। দিনে-দিনে আশপাশ গ্রামসহ বর্তমান দোয়ারাবাজার উপজেলার কয়েকটি গ্রামেও তা ছড়িয়ে পড়ে। গত ক’বছর ধরে উপজেলা কৃষি বিভাগও লিচু চাষে লোকজনকে উৎসাহী করছে এবং বিদেশী লিচুর চারা চাষীদের মাঝে বিতরণসহ বিভিন্নভাবে সরকারী সহযোগিতা করে যাচ্ছে। ছাতক উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা তৌফিক হোসেন খান ও দোয়ারাবাজার উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোহাম্মদ মহসিন জানান, লিচু চাষীদের সবসময় পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন তারা। অনেককে লিচু চাষে উদ্যোগী করা হয়েছে। তাদের সরকারী সহযোগিতাও দেয়া হচ্ছে। চলতি মৌসুমে এ অঞ্চলে লিচুর ফলন ভালো হয়েছে। চাষীরাও পাচ্ছেন ভালো বাজার মূল্য। টিলা বেষ্টিত এ অঞ্চল লিচু চাষের উপযোগী হওয়ায় এখানে লিচুর বাগান করতে আগ্রহীদের সরকারি সকল সহযোগিতা দেয়া হবে বলে জানান এ দু’কর্মকর্তা।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা