1. admin@kholanewsbd24.com : admin :
ধনীদের ওপর কর বসিয়ে দেশের অবকাঠামো বদলাতে চান বাইডেন - খোলা নিউজ বিডি ২৪
শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১২:২১ অপরাহ্ন
শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১২:২১ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
পলাশবাড়ীতে মাদ্রাসার অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে গভর্নিং বডির তিন সদস্যের সংবাদ সম্মেলন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার ‘গাভী’ পেয়ে খুশি নাটোরের সিংড়া উপজেলার ৩৯ টি আদিবাসী পরিবার কুড়িগ্রামে ভার্মী কম্পোষ্ট উৎপাদন নিয়ে প্রশিক্ষণ ও আলোচনা “ময়মনসিংহ পুলিশ হাসপাতালে পুলিশ সদস্যদের জন্য ডায়াগনস্টিক টেস্ট কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন” সদ্য পদন্নোতি প্রাপ্ত সিআইডি’র কর্মকর্তাদের র‍্যাংক ব্যাজ পরিধান করান সিআইডি প্রধান পটুয়াখালীতে ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে শহীদ মিনার নির্মান কাজের ভি‌ত্তিপ্রস্থর স্থাপন ধামইরহাট সীমান্ত প্রেসক্লাবের আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন ময়মনসিংহের গফরগাঁও অধিকাংশ ইটভাটায় পোড়ানো কাঠ শরীয়তপুর পৌরসভার স্টাফের ওপর হামলার অভিযোগ ২ বছর ভোগান্তীর পর সংষ্কার হচ্ছে গৌরীপুর- শ্যামগঞ্জ সড়ক

ধনীদের ওপর কর বসিয়ে দেশের অবকাঠামো বদলাতে চান বাইডেন

প্রশাসন
  • সময় : শুক্রবার, ২ এপ্রিল, ২০২১
  • ১৬৫ বার পঠিত

যুক্তরাষ্ট্রে বড়লোকদের ওপর কর বসিয়ে দেশের অবকাঠামো বদলে দিতে উচ্চাকাঙ্খী পরিকল্পনা করলেন বাইডেন। এর ফলে প্রচুর কর্মসংস্থান হবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

অবকাঠামোর হাল ফেরাতে তিনি দুই ট্রিলিয়ন ডলার খরচ করবেন। এক ট্রিলিয়ন মানে ১০ হাজার কোটি টাকা। আগামী ৮ বছরে বিপুল পরিমাণ অর্থ খরচ করে দেশের অবকাঠামো বদলে দিতে চাইছেন তিনি।

আর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল— বাইডেন ঠিক করেছেন, এই বিপুল পরিমাণ অর্থ তিনি যোগাড় করবেন বড়লোকদের ওপর করের হার বাড়িয়ে।

তিনি বলেছেন, সাধারণ মানুষের ওপর কোনও বাড়তি কর চাপানো হবে না। যাদের আয় চার লাখ ডলার বা তার বেশি, তাদের করের হার ২১ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ২৮ শতাংশ করা হবে। ট্রাম্প ক্ষমতায় এসে বড়লোকদের ওপর কর কমিয়ে দিয়েছিলেন। বাইডেন সেটা আবার বাড়িয়ে পরিকাঠামোয় উন্নতির খরচ যোগাড় করতে চান।

বাইডেনের বক্তব্য, তার এই পরিকরল্পনা হল ‘ওয়ানস ইন আ জেনারেশন প্ল্যান’, মানে এক প্রজন্মে একবারই এই ধরনের যোজনা নেওয়া হয় বা নেওয়া যায়। চীন এখন অর্থনীতির ক্ষেত্রে দ্রুত এগিয়ে আসছে। তার মোকাবিলায় মার্কিন অর্থনীতিও বাড়বে। প্রচুর কর্মসংস্থান হবে। পরিকাঠামোর উন্নতি হবে।

বাইডেনের পরিকল্পনা হল— ২০ হাজার মাইল রাস্তার উন্নতি করা হবে এবং হাজার হাজার ব্রিজ সারানো হবে। সরকারি পরিবহন ব্যবস্থার উন্নতিতে দ্বিগুণ খরচ করা হবে এবং প্রচুর ইলেকট্রিক চার্জিং পয়েন্ট তৈরি করা হবে। পানির পাইপ বদল করা হবে এবং নিকাশী ব্যবস্থার উন্নতি করা হবে। পাওয়ার গ্রিড আপগ্রেড করা হবে যাতে ক্লিন এনার্জি দেওয়া সম্ভব হয়। হাসপাতাল, স্কুল ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্রগুলো সারানো হবে।

এর জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ পেতে করপোরেট কর ২১ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ২৮ শতাংশ করা হবে। আর কর ব্যবস্থার ফাঁকগুলোও বন্ধ করা হবে।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা