1. admin@kholanewsbd24.com : admin :
মণিরামপুরে জাওয়াদের প্রভাবে কৃষিতে ব্যাপক ক্ষতি : পানিতে ভাসছে কাটা ধান - খোলা নিউজ বিডি ২৪    
বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৭:১৯ পূর্বাহ্ন
বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৭:১৯ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
শিবচরে দয়াল বাবা হালিম ফকির(রহ্) এবং মজিদ ফকির এর বাৎসরিক উরসে ভক্তদের ঢল বেলকুচিতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস উদযাপন নড়াইলে কুড়ির ডোপ মাঠে সূর্যাস্তের সঙ্গে সঙ্গে লাখো প্রদীপ জ্বালিয়ে ভাষা শহীদদের স্মরণ পাঁচবিবিতে চাঞ্চল্যকর আবু হাসান হত্যা মামলার পলাতক আসামী আমিনা বেগম গ্রেফতার পাঁচবিবিতে ধর্ষণ মামলার পলাতক আসামী গ্রেফতার পাঁচবিবিতে যথাযোগ্য মর্যদায় শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত ধামইরহাটে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত পাঁচবিবির বুড়াবুড়ির মাজারে ২৫ তম বাৎসরিক ওয়াজ মাহফিলের প্রস্তুতি সভা নড়াইল পুলিশ লাইনস্ স্কুলে শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন পাঁচবিবিতে ঘরবাড়ি ছাড়া ১৭বছর যাবত রেল স্টেশনে থাকেন- আবুল কালাম

মণিরামপুরে জাওয়াদের প্রভাবে কৃষিতে ব্যাপক ক্ষতি : পানিতে ভাসছে কাটা ধান

প্রশাসন
  • সময় : বুধবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ১৭৭ বার পঠিত

যশোর জেলা প্রতিনিধি (আশরাফুল ইসলাম বাবু)

যশোরের মণিরামপুরে ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদের প্রভাবে অসময়ের টানা বর্ষণে চাষকৃত প্রায় অর্ধেক সবজি ক্ষেত পানিতে তলিয়ে গেছে। বেশিরভাগ বোরো বীজতলা এখন পানির নীচে রয়েছে। একই সাথে ক্ষেতে কেটে রাখা আমন ধান পানিতে ভাসছে। পানিতে তলিয়ে গেছে প্রায় সাড়ে ৭শ’ হেক্টর রবি শস্য।

তবে, টাকায় ক্ষতির পরিমান এখনো নিরূপন করা সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছেন উপজেলা কৃষি অফিস। সংশ্লিষ্ট অফিস সুত্রে জানাগেছে, চলতি আমন মৌসুমে অধিকাংশ ধান কাটা হলেও এখনো তা কিছু কিছু মাঠে রয়েছে। যা আকস্মিক বর্ষায় ঘরে তুলতে পারেনি কৃষক।

চলতি আমন মৌসুমে উপজেলার ২২ হাজার ৬’শ ৫০ হেক্টর জমিতে এবার রোপা আমিনের আবাদ হয়। এরমধ্যে উপজেলা কৃষি অফিসের হিসেবে মতে উপজেলার বিভিন্ন মাঠে ২২৭ হেক্টর জমিতে রোপা আমন মাঠে রয়েছে।

টানা বর্ষণে ক্ষেত তলিয়ে যাওয়ায় কাটা ধান পনিতে ভাসছে। উপজেলার জলকর রোহিতা গ্রামের ফটিক দাস, মহিতোষ দাস, অসীম, দাস, ছলেমান বিশ্বাস, আমানত মোড়লসহ একাধিক কৃষক জানান, তাদের কেটে রাখা ধান এখন পানিতে ভাসছে। বিচালি কোনভাবেই করা সম্ভব হবে না। তারা এখন ধান ঘরে তোলা নিয়ে শংকায় আছেন।

জানা যায়,উপজেলায় চলতি শীত মৌসুমে এবার ১হাজার ৫’শ ৭৫ হেক্টর জমিতে ফুল কপি, বাঁধাকপি, মূলা, গাজর, পালংশাক, লাল শাকসহ বিভন্ন ধরনের সবজি চাষ হয়। এরমধ্যে ৮’শ হেক্টর জমির সবজি এখন পানিতে তলিয়ে গেছে। পলাশী গ্রামের মিজানুর রহমান বলেন, তিনি এবার ৩ বিঘা জমিতে গাজরের আবাদ করেছিলেন।

কিন্তু সব এখন পানির নীচে। একই সাথে পেয়াজ, মুসরিও পানিতে তলিয়ে গেছে। রাজ্জাক হোসেন নামের অপর এক চাষী বলেন, তার ২ বিঘা জমির গাজর পনিতে তলিয়ে যাওয়ায় তিনি ক্ষেত থেকে পানি সেচ দিয়ে বের করে দিচ্ছেন। ৩৫ হেক্টর বোরো বীজতলার ২৫ হেক্টর এখন পানির তলে। উপজেলায় ৮০ হেক্টর জমিতে পেঁয়াজ চাষ হলেও ৩০ হেক্টর এখন পানির নীচে। ৮’শ ২০ হেক্টর জমির আলুর ২০৩ হেক্টর পানিতে তলিয়ে গেছে। ১হাজার ৪’শ ০১ হেক্টর জমিতে সরিষা চাষ হলেও ৫’শ হেক্টর এখন পানির নীচে। ৯৯ হেক্টর জমিতে গম চাষ হলেও ২০ হেক্টর পানিতে তলিয়ে গেছে।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা আবুল হাসান বলেন, ২/১ দিন পরে আর্থিকভাবে ক্ষতির পরিমান নিরূপন করা যাবে।

Please Share This Post in Your Social Media

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা