1. admin@kholanewsbd24.com : admin :
বেনাপোল বন্দরে খালাসের অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে আছে প্রায় ৮ হাজার ট্রাক - খোলা নিউজ বিডি ২৪    
বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:০৩ অপরাহ্ন
বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:০৩ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
মসিকের উদ্যোগে জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস উদযাপিত সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে সচেতনতামূলক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত ধামইরহাটে যুবলীগের সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কার্যক্রমের উদ্বোধন জামালপুরে দুর্যোগ প্রস্তুতি বিষয়ক আলোচনা সভা পটুয়াখালীতে আংশিক কমিটি দিয়েই চলছে জেলা যুবলীগ গৌরীপুরে দু’ভবনের প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধন ফলক পড়ে আছে হোটেলের ফ্লোরে বিপিএম পদক পেলেন জয়পুরহাটের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ নূরে আলম শেরপুর জেলায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের মাদকবিরোধী অভিযান পরিচালিত হয় নড়াইলের লোহাগড়ায় ৪ বছরের শিশুকে গলা টিপে হত্যার অভিযোগে সৎ মা পুলিশ হেফাজতে পাঁচবিবিতে মহিলা আওয়ামীলীগের ৫৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

বেনাপোল বন্দরে খালাসের অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে আছে প্রায় ৮ হাজার ট্রাক

প্রশাসন
  • সময় : সোমবার, ৩ জানুয়ারি, ২০২২
  • ৮৪ বার পঠিত

যশোর জেলা প্রতিনিধি (আশরাফুল ইসলাম বাবু)

নানান প্রচেষ্টা সত্ত্বেও গত এক যুগেও কালীতলা পার্কিংয়ে সিন্ডিকেটের কবল থেকে মুক্তি মেলেনি বাংলাদেশি আমদানিকারকদের। বর্তমানে প্রায় ৮ হাজার ট্রাক যশোরের বেনাপোল বন্দরে প্রবেশের অপেক্ষায় কালীতলা পাকিংয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছে। ১০ কিলোমিটার দূরত্বের কালীতলা পাকিং থেকে একটি ট্রাক বেনাপোল বন্দরে পৌঁছাতে আজও সময় লাগে এক মাসেরও অধিক।

এতে আমদানি খরচ যেমন বাড়ছে তেমনি পণ্যের গুনগত মান নষ্ট হচ্ছে। নতুন বছরে বাণিজ্য সম্প্রসারণে এ যন্ত্রনা থেকে মুক্তি মিলতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন ব্যবসায়ীরা।

বেনাপোল বন্দর থেকে ভারতের দ্বিতীয় বৃহত্তম বাণিজ্যিক শহর হিসাবে পরিচিত কলকাতার দূরত্ব মাত্র ৮৪ কিলোমিটার। যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ হওয়াতে প্রথম থেকে এ পথে বাণিজ্যে দুই দেশের ব্যবসায়ীদের আগ্রহী বেশি। এ পথে আমদানি হওয়া পণ্যের একটি বড় অংশ হচ্ছে- শিল্প কলকারখানার কাঁচামাল, গার্মেন্টস, মেশিনারি দ্রব্য ও শিশু খাদ্য। তবে দিন দিন আমদানি চাহিদা বাড়লেও বাণিজ্য সম্প্রসারণে প্রধান বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে ভারত অংশের বনগাঁ পৌরসভার নিয়ন্ত্রণাধীন কালীতলা ট্রাক পার্কিং।

বাংলাদেশ থেকে রফতানি পণ্যবাহী ট্রাক পণ্য নিয়ে সরাসরি বন্দরে প্রবেশ করতে পারলেও ভারতীয় ট্রাক চালকদের থাকতে হয় কালিতলা পার্কিংয়ে। সেখান থেকে সিরায়াল করে বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করতে সময় লাগে কমপক্ষে এক মাস। পার্কিংয়ে সিরিয়ালের নামে সিন্ডিকেটের কারণে দীর্ঘদিন ট্রাক আটকে থাকায় যেমন আমদানি খরচ বাড়ে তেমনি পণ্যের গুণগত মান নষ্ট হয়। গত কয়েক বছর ধরে এ পথটি সিন্ডিকেটমুক্ত করার জন্য দফায় দফায় বৈঠক হলেও কোনো সুরাহ মেলেনি।

এ বিষয়ে ভারতীয় ট্রাকচালক অরিন্দম বলেছেন, কালীতলা পার্কিংয়ের সিরিয়ালে দাঁড়িয়ে বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করতে কমপক্ষে এক মাস সময় লেগে যায়। এতে যেমন ব্যবসায়ীরা বিভিন্নভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হন, তেমনই বাড়ছে চালকদের দূর্ভোগ।বন্দরের সিন্ডিকেটের বিষয়ে বেনাপোল আমদানি-রফতানি সমিতির সহসভাপতি আমিনুল হক বলেছেন, ব্যবসায়ীরা কালীতলার সিন্ডিকেটমুক্ত হলে, আমদানি খরচ কমবে।

সিন্ডিকেট থেকে মুক্ত হতে বিভিন্নভাবে চেষ্টা করা হয়েছে। তবে সুফল মেলেনি। এ ক্ষেত্রে রাষ্টীয় হস্তক্ষেপ দরকার। প্রায় এক যুগ ধরে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা কালীতলা ট্রাক পার্কিং সিন্ডিকেটের হাতে জিম্মি হয়ে পড়েছে উল্লেখ করে বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ এ্যসোসিয়েশনের সভাপতি মফিজুর রহমান সজন বলেছেন, বর্তমানে বাংলাদেশে প্রবেশের অপেক্ষায় কালীতলা পার্কিংয়ে প্রায় ৮ হাজার ট্রাক পণ্য নিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছে। এত লোকসান পুষিয়ে ব্যবসায়ীরা লাভ করবেন কিভাবে?

সেই সঙ্গে আমদানি কমায় দিন দিন সরকারের রাজস্বও কমে আসছে। পণ্যজটের বিষয়ে বেনাপোল বন্দরের উপপরিচালক(ট্রাফিক) আবদুল জলিল বলেছেন, বর্তমানে বেনাপোল বন্দর দিয়ে প্রতিদিন ৭০০ ট্রাক ভারত থেকে প্রবেশের চাহিদা রয়েছে। তবে দিনে ৩০০ থেকে ৪০০ এর বেশি ট্রাক বন্দরে প্রবেশ করতে পারে না। কালীতলা পার্কিংয়ে পণ্যজট কমাতে ভারতীয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে একাধিকবার বৈঠক হয়েছে। তারা চলমান সমস্যা সমাধানে আমাদেরকে আশ্বস্ত করেছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা