1. admin@kholanewsbd24.com : admin :
নিরাপত্তার অভাবে বীর মুক্তিযোদ্ধার নিজের হাতে স্বাধীন করা দেশ ত্যাগ! - খোলা নিউজ বিডি ২৪    
বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৬:০০ পূর্বাহ্ন
বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৬:০০ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
জয়পুরহাট র‌্যাব-৫ কর্তৃক ৭২কেজি গাঁজাসহ মাদক সম্রাট মনির গ্রেপ্তার ময়মনসিংহের অধিনায়ক অতিরিক্ত ডিআইজি মোঃ মহিবুল ইসলাম খান বিপিএম পদকে ভূষিত হয়েছেন পাঁচবিবিতে এক স্কুল শিক্ষকের বেশ কয়েকটি মেহগনি গাছ কেটে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা জামালপুরে রুই মাছের পূর্ণাঙ্গ জিনোম সিকোয়েন্সিং কাশিমপুর থানা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ মোশাররফ মৃধার ইন্তেকাল ঠাকুরগাঁও জমে উঠেছে জেলা পরিষদ নির্বাচন ঠাকুরগাঁওয়ে “আত্মকথন” শীর্ষক ভিডিওচিত্র সংকলনের উদ্বোধনী বেলকুচিতে দু বছরেও হয়নি মরিয়ম হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন,মামলা ডিবিতে স্থানান্তর “ধউর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়”র বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত পুলিশের সর্বোচ্চ পদক পেলেন লেফটেন্যান্ট কমান্ডার রাকিব মাহমুদ খান

নিরাপত্তার অভাবে বীর মুক্তিযোদ্ধার নিজের হাতে স্বাধীন করা দেশ ত্যাগ!

প্রশাসন
  • সময় : শনিবার, ১৮ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ১০৪৪ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টার; এস আর টুটুল এম এল!

১৯৭১ এর (৭ই মার্চে) জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের তেজ-দীপ্ত রক্তজ্বলা- জ্বালাময়ি ভাষনে অনুপ্রাণিত হয়ে মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন, সিলেটের জকিগঞ্জের টগবগে তরুণ যুবক জহর সেন।

তথ্য সুত্রে জানা যায়, তিনি প্রথমে কুষ্টিয়া অঞ্চলে ও পরবর্তীতে হবিগঞ্জের বাহুবলে মুক্তিযুদ্ধ করেন এবং একাই (১৭) জন পাকসেনা ও দুই জন রাজাকার-আলবদর মেরেছিলেন।

একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধকালিন দীর্ঘ ৯ মাস পশ্চিম পাকিস্তানের পাক-হানাদার বাহিনী
পরিকল্পিতভাবে স্বদেশীয় রাজাকার, আলবদর- এর সহযোগিতায় তৎকালিন পূর্ব-পাকিস্তানের বর্তমান (বাংলাদেশের) জ্ঞানী-গুনী বুদ্ধিজীবী ও মুক্ত-বুদ্ধিদীপ্ত মানুষসহ, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের মা-বাবা, ভাই-বোন, স্ত্রী সন্তানদের নৃশংসভাবে হত্যা করে। বীর মুক্তিযোদ্ধা-জহর সেন) যুদ্ধ শেষে বাড়ি ফিরে এসে দেখেন, তার কাজিন রেপ হয়েছে, তাঁর বাবা মাকে হত্যা করা হয়েছে। দেশ ও জাতির জন্য নিজের জীবন উৎসর্গ করে মৃত্যু নিশ্চিত বুলেটের মুখে সশস্ত্র সংগ্রাম করে যে বীর বাঙালি দেশ স্বাধীন করেছে, সে পাক-হানাদার বাহিনী ও স্বদেশিয় রাজাকারের রক্ত-চক্ষুর আগ্রাসন থেকে রক্ষা করতে পারেনি নিজ কাজিনের সম্ভ্রম, বাঁচাতে পারেনি মা-বাবাক। শতকষ্ট আর যাতনা তার বুকটাকে কূরেকূরে বাকচেতণা ধংশ করে দিয়েছে, মুক্তিযোদ্ধার সনদ নিতেও যাননি তিনি।

৭৫ এর ১৫ই আগষ্টে মহান মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবকে সপরিবারে নৃশংসভাবে হত্যার পর তৎকালিন ক্ষমতা লোভি ঐ পশ্চিম পাকিস্তানের দোসর, স্বদেশিয় রাজাকার-আলবদর কতৃক তার ওপর নেমে আসে নির্যাতনের স্টিম রোলার, নির্মম নির্যাতনে দেশে নিরাপদ বোধ না করায় তিনি ১৯৯০ সালে ভারতে চলে যান। শুধু নিরাপত্তার অভাবে বীর মুক্তিযোদ্ধা (জহর-সেন)
নিজ হাতে স্বাধীন করা বাংলাদেশে থাকতে পারেন নাই, এ বড় বেদনার বড় লজ্জার।

এই বীর মুক্তিযোদ্ধাকে দেশে ফিরিয়ে এনে পূর্ন-রাষ্ট্রিয় সন্মান প্রদানের দাবী জানাই মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী, মহান মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব আদর্শবাদী জনতা।।

তথ্যসূত্র: মুহাম্মদ আতাউল গণি ওসমানীর (পিএস) সালেকউদ্দিনের লেখা বই (সিলেটে মুক্তিযুদ্ধ) এছাড়া দেব-দুলাল মুন্না নিজেও জহর সেন-এর সাথে (৮৮) সালে দেখা করেন, প্রিয় প্রজন্ম ম্যাগাজিনে একটা ইন্টারভিউ ছাপা হয়েছিল।

#একাত্তরের এপ্রিলে কুষ্টিয়ায় তোলা ছবি।
#ছবি: অ্যান ডি হেনিং)

Please Share This Post in Your Social Media

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা