1. admin@kholanewsbd24.com : admin :
তানোরে বেশী দামে সার বিক্রয় করছে বালাইনাশক ব্যবসায়ী। - খোলা নিউজ বিডি ২৪    
বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১:৫১ পূর্বাহ্ন
বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১:৫১ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
জামালপুরে দুর্যোগ প্রস্তুতি বিষয়ক আলোচনা সভা পটুয়াখালীতে আংশিক কমিটি দিয়েই চলছে জেলা যুবলীগ গৌরীপুরে দু’ভবনের প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধন ফলক পড়ে আছে হোটেলের ফ্লোরে বিপিএম পদক পেলেন জয়পুরহাটের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ নূরে আলম শেরপুর জেলায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের মাদকবিরোধী অভিযান পরিচালিত হয় নড়াইলের লোহাগড়ায় ৪ বছরের শিশুকে গলা টিপে হত্যার অভিযোগে সৎ মা পুলিশ হেফাজতে পাঁচবিবিতে মহিলা আওয়ামীলীগের ৫৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত জয়পুরহাট ও নওগাঁয় র‍্যাবের অভিযানে পর্নোগ্রাফি ও মাদকব্যবসার অপরাধে ৮ জন গ্রেপ্তার নওগাঁর ধামইরহাটে মহিলা আওয়ামী লীগের ৫৫ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত ময়মনসিংহে নারীদের ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইন্সস্টলেশন মেইনটেনেন্স বিষয়ক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত

তানোরে বেশী দামে সার বিক্রয় করছে বালাইনাশক ব্যবসায়ী।

প্রশাসন
  • সময় : বৃহস্পতিবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ১৭৫ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টার, এস আর টুটুল এম এল।

রাজশাহীর তানোরে বালাইনাশকের লাইসেন্সধারি বালাইনাশক ব্যবসায়ী অবৈধভাবে (মেয়াদোত্তীর্ন) বিভিন্ন প্রকারের সার বেশী মূল্যে বিক্রয় করছেন বলে অভিয়োগ উঠেছে।
স্থানীয় কৃষকেরা জানান, এসব বালাইনাশক ব্যবসায়ীরা ক্রয় রশিদ ছাড়াই বিভিন্ন কৌশলে নওগাঁ জেলার মান্দা উপজেলার চৌবাড়িয়াহাট, সাবাইহাট, নিয়ামতপুর ও চাপাইনবয়াবগঞ্জ জেলার নাচোল এলাকা থেকে রাঁতের আঁধারে চোরাপথে নিম্নমাণের সার এনে মজুদ করে অতিরিক্ত দামে বিক্রয় করছে।

এতে মানসম্পন্ন ও আশানুরুপ ফসল উৎপাদন ক্ষতিগ্রস্ত হবে বলে, সাধারণ কৃষকেরা শঙ্কিত হয়ে পড়েছে। তাছাড়া রশিদ বিহীন বিক্রয় করা সারগুলো আসল কি নকল- নাকি নিম্নমাণের সে বিষয়েও কৃষকেরা চরম সঙ্কার মধ্যে রয়েছে। কারণ এসব সার ব্যবহার করে কৃষকেরা যদি কাঙ্খিত ফসল না পায় তাহলে রশিদ না থাকায় তারা কাউকে দায়ী করতে পারবে না। এলাকার কৃষক বুলেট, রকি ও আপেল জানান, গত বছর মেসার্স ফাহিম টেড্রার্স প্রোঃ এনায়েতউল্লাহ্ ডিলার-এর দোকান থেকে অধিক দামে সার কিনে তারা প্রতারিত হয়েছেন। কিন্তু রশিদ না দেয়ায় তিনি সার বিক্রয়ের কথা অস্বীকার করেছেন। তারা বলেন, এবারেও উপজেলায় যখন পটাশ ও টিএসপি সারের সংকট, তখান তার দোকানে দাম বেশী দিলে এসব সার পাওয়া যাচ্ছে।

স্থানীয় সুত্র জানায়, তানোরের কলমা ইউপির বহাড়া গ্রামের বাসিন্দা আবুল কালামের পুত্র এনায়েতউল্লাহ্ বাড়িতে
মেসার্স ফাহিম টেড্রার্স নামে বালাইনাশক সার ডিলার-এর লাইসেন্স নিয়ে অতিরিক্ত দামে কালোবজারে সার বিক্রয় করছে।
জানা গেছে অনেক আগেই তার বালাইনাশক সার ডিলার লাইসেন্সের (মেয়াদোত্তীর্ন) হয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক কৃষক জানান, কলমা ইউপির বহাড়া গ্রামের বাসিন্দা আবুল কালামের পুত্র এনায়েতউল্লাহ্ বাড়িতে
মেসার্স ফাহিম টেড্রার্স নামে বালাইনাশক সার ডিলার ৮০০ টাকা বস্তা মূল্যের ডাই অ্যামোনিয়া ফসফেট (ডিএপি) সার ১০০০ থেকে ১৩০০ টাকা, ১১০০ টাকার ট্রিপল সুপার ফসফেট বা টিএসপি সার বিক্রি হচ্ছে ১৫০০ থেকে ১৭০০ টাকা এবং ৭৫০ টাকার এমওপি ১০০০ থেকে ১১০০ টাকা বস্তা দরে বিক্রয় করছে। তবে কোনো রশিদ দেয়া হচ্ছে না। বালাইনাশকের লাইসেন্স নিয়ে এভাবে সার বিক্রি করতে পারেন কি না জানতে চাইলে, মেসার্স ফাহিম টেড্রার্সের স্বত্ত্বাধিকারী এনায়েতউল্লাহ বলেন, অবশ্যই বিক্রি করতে পারি। তবে দাম বেশী নেয়ার বিষয়ে বলেন, আমি বেশী দামে বাইরে থেকে সার নিয়ে এসে তো কম দামে বিক্রয় করতে পারিনা।এবিষয়ে জানতে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শামিমুল ইসলামের মুঠোফোনে একাধিকবার কল দেওয়া হলেও শুধু বিজি পাওয়া যায়। ফলে তার কোনো বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

Please Share This Post in Your Social Media

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা